বুধবার , নভেম্বর ১৪ ২০১৮
Breaking News
Home / জাতীয় খবর / সিলেটে ইতিহাসের ধারাবাহিকতা
for Call: 01741616874

সিলেটে ইতিহাসের ধারাবাহিকতা

 

পৌরসভা হিসেবে সিলেট শহরের যাত্রা ১৮৭৮ সালে। ২০০২ সালে সিটি করপোরেশনে উন্নিত হয় ১২৪ বছর বয়সী সিলেট পৌরসভা। দেশ স্বাধীনের পর থেকে অর্থাৎ ১৯৭৩ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত সিলেট পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে একটি বিশেষ ধারাবাহিকতা রয়েছে। সেই ধারাবাহিকতাটি হচ্ছে, পৌরসভা চেয়ারম্যান ও সিটি মেয়ররা সব সময় তাদের আসন হারাতে হয়েছে নিজেদের অধীনস্থ কমিশনার ও কাউন্সিলরদের কাছে।

আর কমিশনারদের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে যাওয়া পৌর চেয়ারম্যানরা পরবর্তীতে আর কখনো বিজয়ী হয়ে পুনরায় ফিরতে পারেননি পৌরসভার শীর্ষ চেয়ারে। পৌরসভার ইতিহাসের এই ধারাবাহিকতা সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও অব্যাহত ছিল। এবারো এর ব্যতিক্রম হয়নি। বিজয়ী ঘোষণা করা না হলেও প্রায় ৪ হাজার ৬০০ ভোট বেশী পেয়ে বদর উদ্দিন কামরানের চেয়ে এগিয়ে আছেন সিসিকের সদ্য সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

১৯৭৩ সালে কামরানের নির্বাচনী রাজনীতি শুরু। ওই সময় তিনি সিলেট পৌরসভায় কমিশনার পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হন। তখন পৌর চেয়ারম্যান ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা বাবরুল হোসেন বাবুল। এ দফায় দায়িত্ব পালন করে মধ্যপ্রাচ্যে পাড়ি জমান কামরান। ১৯৭৭ সালের নির্বাচনেও পৌর চেয়ারম্যান হন বাবুল। দেশে ফিরে ১৯৮৩ সালে ফের নির্বাচন করে কমিশনার হন কামরান, চেয়ারম্যান হন এডভোকেট আ ফ ম কামাল। ১৯৮৮ সালে কামরান আবারও কমিশনার হন, চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন সেই কামাল। ১৯৯৫ সালে সিলেট পৌরসভা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। ওই সময় তার সাথে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন বাবরুল হোসেন বাবুল ও আ ফ ম কামাল। এই দুজনের অধীনে পূর্বে কমিশনার ছিলেন কামরান। তবে বাবুল ও কামাল দুজনকেই পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন কামরান। সিটি করপোরেশন হিসেবে সিলেট মর্যাদা পাওয়ার পর ২০০৩ সালে প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে মেয়র পদে বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সাথে আ ফ ম কামালও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। কিন্তু এখানেও কামালকে পরাজিত করে মেয়র হন কামরান। ২০০৮ সালে সিলেট সিটি করপোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচনেও কামরান বিজয়ী হন, পরাজয় বরণ করেন কামাল।

বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী ২০০৩ সালে সিটি কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। তখন মেয়র পদে ছিলেন কামরান। পরবর্তীতে ২০১৩ সালের সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে কামরানকে পরাজিত করেন আরিফ। তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, কামরান যাদের অধীনে কমিশনার ছিলেন, পরবর্তীতে তাদেরকে পরাজিত করে তিনি পৌর চেয়ারম্যান হন। কামরানের অধীনে আরিফ কাউন্সিলর ছিলেন, পরবর্তীতে কামরানকে পরাজিত করেই মেয়র হন আরিফ। এটাও দেখা যাচ্ছে, যেসব পৌর চেয়ারম্যান নিজের পূর্বের অধস্থন (কমিশনার) ব্যক্তির কাছে পরাজয় বরণ করেন, সেসব চেয়ারম্যান আর কখনোই এক সময়কার ওই অধস্থন ব্যক্তিকে পরাজিত করতে পারেননি। এছাড়া স্বাধীন বাংলাদেশে সিলেট পৌরসভায় বাবুল ও কামাল দু’বার করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সিলেট সিটি করপোরেশনে দু’বার মেয়র হন কামরান।

সিলেটভিউ২৪ডটকম::

About HK Nasir

Director & Editor: Allbdnews24.com

Check Also

ফার্মের মুরগি মানবদেহে রোগ ছড়াচ্ছে

অলবিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: বেঁচে থাকার তাগিদেই প্রতিদিনি আমরা খাবার খাই। কিন্তু এই খাবারই যে আবার …

রাজধানীতে বাস চাঁপায় ৩ শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু: অবরোধ-ভাঙচুর

ছাতক মিডিয়া সেন্টার ডেস্ক:: রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাস থামানোর চেষ্টাকালে একদল কলেজশিক্ষার্থীর ওপর যাত্রীবাহী বাস …

বিএমএসএফ এর নবনির্বাচিত কমিটিকে ছাতক শাখার অভিনন্দন

  ছাতক প্রতিনিধি: বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর ৩য় জাতীয় কাউন্সিল শনিবার বিকেলে জাতীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Thanks For Visit Our Site